ঘাম:সমস্যা এবং সতর্কতা বিষয়ে কিছু কথা।

      #  সমস্যা:~                                                       গ্রীষ্মকালে প্রত্যেকের শরীর দিয়ে ঘাম ঝরে।                 ত্বক ভেদে ঘামের পরিমান বিভিন্ন হয়।শুষ্ক ত্বকের তুলনায় তৈলাক্ত ত্বকে ঘামের পরিমান বেশি হয়।অতিরিক্ত ঘাম দিলে জামা কাপড় ভিজে যায়,ফলে অস্বস্তি বোধ হয়।পরিবেশে উড়ে বেড়ানো ধুলো ঘামের সঙ্গে মিশে যায়।ঘাম শুকিয়ে গেলে ত্বকের উপর ধুলোর আস্তরন পড়ে যায়।

                                                                                                      ত্বকের উপর ধুলো ময়লা জমে লোমকূপ গুলি বন্ধ করে দেয়।ফলে বিভিন্ন চর্ম রোগের সৃষ্টি হয়।অতিরিক্ত ঘাম শরীরে দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে।শরীর থেকে দুর্গন্ধ বেরোলে সামাজিক মানুষের কাছে ঘৃণার পাত্র হতে হয়।বাসে-ট্রেনে যাতায়াত কালে দুর্গন্ধ ব্যক্তিটি পাশের সিটে বসে থাকা যাত্রীর কাছে অতিরিক্ত অসহ্য বলে মনে হয়।                                                                             


                                                                                    #সতর্কতা:~                                                                                                                                                             ঘামের এই সমস্যার জন্য কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা দরকার।তা নিম্নরূপ------                                                                                                        1)যাদের প্রচুর ঘাম দেয় তারা একাধিক বার স্নান করতে পারেন।তবে যাদের ঠান্ডার ধাত আছে তারা সাবধান।                                                                                                     

2)গায়ে ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে চার-পাঁচ চা চামচ গোলাপ জল স্নানের জলের সঙ্গে মিশিয়ে স্নান করলে ভালো।                       

                                                                                 3)প্রখর সূর্যতাপে বেরোবেন না।প্রয়োজন হলে ছাতা নিয়ে বেরোবেন।                                                                                 


 4)রোদে বেরোলে উন্নত মানের সানগ্লাস ব্যবহার করবেন।নিম্ন মানের সানগ্লাস ব্যবহার করে চোখ নষ্ট করবেন না।

5)গ্রীষ্মকালে গায়ে যথাসম্ভব হালকা সুতির            পোশাক পরার চেষ্টা করবেন।গেঞ্জি ও মোজা ব্যবহার করলে অবশ্যই সুতির জিনিস ব্যবহার করবেন।কারণ সুতির জিনিস সহজে ঘামকে শুষে নেয় এবং হাওয়া   পাশ করতে সাহায্য করে।                                                                     



6)ফাউন্ডেশনের ব্যবহার গ্রীষ্মকালে না করলেই ভালো।কারণ এতে ত্বকের ক্ষতি হয়।                                                    

                  

7)রোদ থেকে এসে চোখে-মুখে ঠান্ডা জলের ঝাপটা দিলে আরাম পাবেন।                                                               

          


 8)গায়ে ছুলি বেরোলে পাতিলেবু কেটে তাতে                 সামান্য লবণ মিশিয়ে ছুলির উপর দুই-তিন বার আলতো ভাবে ঘষবেন।এই রকম পাঁচ-ছয় দিন করলে সুফল পাবেন।           




   
 9)গায়ে সুগন্ধ দ্রব্য ব্যবহার করবেন।                                                     


  
       
10)  গ্রীষ্মকালে রুজ,মেক-আপ ও লিপস্টিক হালকা ভাবে ব্যবহার করবেন।                                                            

No comments

Theme images by -ASI-. Powered by Blogger.